ঢাকা | |
সংবাদ শিরোনাম :
‘রাজাকারের পক্ষে রাজাকারের সন্তান বলে স্লোগান দিতে লজ্জা করে না’ টাঙ্গাইলে বানভাসিদের ডায়রিয়ার প্রকোপসহ ছড়াচ্ছে পানিবাহিত রোগ কোটা নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে লিভ টু আপিল আজ কলম্বিয়াকে কাঁদিয়ে কোপার সর্বোচ্চ চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা ‘তুমি কে, আমি কে? রাজাকার, রাজাকার' স্লোগান, মধ্যরাতে উত্তপ্ত ঢাবি মধ্যরাতে ক্যাম্পাসে ইবি শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মধ্যরাতে উত্তাল ঢাবি, কোটা আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভ যে কারণে পিছিয়েছে আর্জেন্টিনা-কলম্বিয়া ফাইনাল ট্রাম্পকে হত্যাচেষ্টাকারী স্নাইপারের গাড়ি ও বাড়িতে মিললো ‘বিস্ফোরক’ আরসা সন্ত্রাসীদের সঙ্গে গোলাগুলিতে পুলিশ সদস্য আহত

ডেঙ্গু প্রতিরোধে যে সব খাবার খাদ্য তালিকায় রাখা জরুরী

ডেঙ্গু রোগের প্রসার দিনে দিন বাড়ছে এবং সেই সাথে শিশু থেকে বৃদ্ধ সব বয়সের মানুষ এই বিষম রোগের
  • আপলোড সময় : ২২ আগস্ট ২০২৩, সকাল ৮:৫১ সময়
  • আপডেট সময় : ২২ আগস্ট ২০২৩, সকাল ৮:৫১ সময়
ডেঙ্গু প্রতিরোধে যে সব খাবার খাদ্য তালিকায় রাখা জরুরী ছবি : অনলাইন

ডেঙ্গু রোগের প্রসার দিনে দিন বাড়ছে এবং সেই সাথে শিশু থেকে বৃদ্ধ সব বয়সের মানুষ এই বিষম রোগের শিকার হচ্ছে। ডেঙ্গু থেকে সুরক্ষিত থাকতে আমাদের সতর্কতা প্রয়োজন। এতে আগামীতে মোকাবিলা করা সহজ হবে।


ডেঙ্গু সংক্রমণ থেকে বাঁচার জন্য প্রতিদিন আমাদের খাবার সামগ্রীতে কিছু বিশেষভাবে যোগ করতে হবে। এই যত্নে রক্ষা প্রতিরোধ শক্তি বৃদ্ধি পাবে। নিচের তালিকাতে সেই খাবারগুলি সংজ্ঞান করা যাক:


ভিটামিন সি যুক্ত খাবার: ভিটামিন সি দ্বারা আমাদের প্রতিরোধ শক্তি বৃদ্ধি হয়। লেমন, অরেঞ্জ, বেরি, কিউই, স্ট্রবেরি, বেল পেপার এবং আমের মতো ফলে ভিটামিন সি প্রচুর পরিমাণে রয়েছে। এই খাবারগুলি ডেঙ্গুর সঙ্গে লড়াইতে সাহায্য করতে পারে।


জিঙ্ক সমৃদ্ধ খাবার: জিঙ্ক ইমিউন সিস্টেম শক্তিশালী করতে গুরুত্বপূর্ণ। মাংস, বাদাম, বীজ, মুরগির মাংস এবং লিন মিট মধ্যে জিঙ্ক প্রচুর পরিমাণে থাকে।


ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ খাবার: ফ্যাটি ফিশ যেমন সালমন, ম্যাকেরেল, সার্ডিন ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড ধারণ করা হয়ে থাকে। এই অ্যাসিডের মধ্যে প্রদাহ-বিরোধী বৈশিষ্ট্য আছে যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।


অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ খাবার: বেরি জাতীয় ফল, আঙুর, পালং শাক, কালে এবং ব্রকোলি প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। এই খাবারগুলি অক্সিডেটিভ স্ট্রেস থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করতে পারে।


রসুন এবং হলুদ: রসুন ও হলুদ রোগ প্রতিরোধ শক্তি বৃদ্ধি করতে কার্যকরী। রসুনে অ্যান্টিভাইরাল এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য থাকে, আর হলুদে কারকিউমিন অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট গুণ রয়েছে।


প্রচুর পানি পান: প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করা গুরুত্বপূর্ণ, কারণ এটি সাহায্য করে শরীর হাইড্রেটেড থাকায় ইমিউনিটি শক্তি বৃদ্ধি পেতে। ফলের রস, দই, কলা এবং ফলের রস সহ প্রাকৃতিক পানিতে শক্তিশালী খাবার যোগ করা উচিত।


ভিটামিন ডি: ভিটামিন ডি ইমিউনিটি শক্তি বৃদ্ধি করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। সূর্যালোক থেকে ভিটামিন ডি পেতে সাহায্য করে। তবে, ফ্যাটি ফিশ, ফোর্টিফায়েড দুগ্ধজাত খাবার এবং ডিমে থাকা ভিটামিন ডি আপনার শরীরে যোগ করতে সাহায্য করতে পারে।

  • বিষয়:

নিউজটি আপডেট করেছেন: স্টাফ রির্পোটার।

বাংলা নিউজ নেটওয়ার্ক ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
কমেন্ট বক্স
সর্বশেষ সংবাদ
ইসরায়েলে হামলা বন্ধের শর্ত দিল হিজবুল্লাহ

ইসরায়েলে হামলা বন্ধের শর্ত দিল হিজবুল্লাহ